এক নজরে সিআরপিডি – শিক্ষা

36

জাতিসংঘপ্রতিবন্ধী ব্যক্তি অধিকার সনদের শিক্ষাসংক্রান্ত ২৪ নং ধারায় একীভূত শিক্ষাব্যবস্থা বাস্তবায়নের লক্ষ্যে রাষ্ট্রকে যেসব পদক্ষেপ গ্রহণ করতে বলা হয়েছে:

১.শরিকরাষ্ট্র প্রতিবন্ধী ব্যক্তিদের শিক্ষালাভের অধিকারকে স্বীকৃতি দেয়। বৈষম্যহীন ও সম-সুযোগেরভিত্তিতে এই অধিকার বাস্তবায়নের জন্য শরিকরাষ্ট্র সব স্তরে একটি একীভূত শিক্ষাব্যবস্থা ও জীবনব্যাপী শিক্ষালাভের ব্যবস্থা করবে,যার উদ্দেশ্য হবে:

  • ক) মানুষ হিসেবে সকল সম্ভাবনা, আত্মসম্মান ও আত্মমূল্যের পূর্ণ বিকাশ এবং মানবাধিকার, মৌলিক স¦াধীনতা ও মানব বৈচিত্র্যের প্রতি শ্রদ্ধাবোধ শক্তিশালী করা
  • খ) প্রতিবন্ধী ব্যক্তিদের ব্যক্তিত্ব, মেধা, সৃজনশীলতা এবং তাদের মানসিক ও শারীরিক সামর্থ্যরে সর্বোচ্চ সম্ভাবনার বিকাশ
  • গ) প্রতিবন্ধী ব্যক্তিদের একটি মুক্ত সমাজে কার্যকরভাবে অংশগ্রহণের জন্য সমর্থ করে তোলা।

 

২.এই অধিকার বাস্তবায়নের জন্য শরিকরাষ্ট্র নিশ্চিত করবে যে:

ক)প্রতিবন্ধিতার কারণে কোনো ব্যক্তি যেন সাধারণ শিক্ষাব্যবস্থা থেকে বাদ না পড়ে। প্রতিবন্ধিতার কারণে কোনো শিশু যেন অবৈতনিক ও বাধ্যতামূলক প্রাথমিক ও মাধ্যমিক শিক্ষালাভ থেকে বঞ্চিত না হয়

খ) প্রতিবন্ধী ব্যক্তিরা যেন তার সমাজের সবার মতো সমানভাবে একটি একীভূত, মানস¤পন্ন অবৈতনিক প্রাথমিক ও মাধ্যমিক শিক্ষালাভের সুযোগ পায়

গ) ব্যক্তির প্রয়োজন অনুযায়ীতার স¦াচ্ছন্দ্যের জন্য উপযোগী পরিবেশ ও ন্যায্য সুযোগ-সুবিধারব্যবস্থা যেন গ্রহণ কর াহয়

ঘ) সাধারণ শিক্ষাব্যবস্থার মধ্য থেকেই যেন প্রতিবন্ধী ব্যক্তিরা তাদের কার্যকর শিক্ষা-সহায়ক প্রয়োজনীয় সহযোগিতা পায়

ঙ) সার্বিক একীভূত শিক্ষার উদ্দেশ্যের সঙ্গে সংগতি রেখে কার্যকর ব্যক্তি-নির্দিষ্ট সহায়তা প্রদান করে এমন পরিবেশ তৈরি করতে হবে,যেটি সর্বোচ্চ প্রাতিষ্ঠানিক শিক্ষাগত ও সামাজিক বিকাশ ঘটায়।

 

৩.শরিকরাষ্ট্র প্রতিবন্ধী ব্যক্তিদের শিক্ষায় এবং সমাজের সদস্য হিসেবে পূর্ণ ও সম-অংশগ্রহণে সমর্থ করে তুলতে ব্যক্তিক ও সামাজিক দক্ষতা অর্জনে সক্ষম করে তুলবে। এই লক্ষ্যে, শরিকরাষ্ট্র উপযুক্ত ব্যবস্থা গ্রহণ করবে, যার মধ্যে রয়েছে:

ক) ব্রেইলপদ্ধতি, বিকল্পলিপি যোগাযোগের জন্য বিকাশমান ও বিকল্প মাধ্যম, উপায় ও শৈলীর ব্যবহার শিক্ষা, পরিচিতি ও চলাচলের দক্ষতা অর্জন, সাথী-সহায়তা এবং নিবিড়-পরামর্শ প্রদান করা

খ) ইশারাভাষা শেখায় সহায়তা করা এবং বাক-শ্রবণ প্রতিবন্ধী জনগোষ্টীর ভাষাগত পরিচয়কে সমুন্নত করা

গ) যেসব ব্যক্তি, বিশেষত যেসব শিশু দৃষ্টি, বাক-শ্রবণ ও শ্রবণ দৃষ্টিপ্রতিবন্ধী, তাদের জন্য উপযুক্ত ভাষায় যোগাযোগের পদ্ধতি ও উপায়ের মাধ্যমে উপযুক্ত পরিবেশ শিক্ষা প্রদান নিশ্চিত করা, যেন তা সর্বোচ্চ শিক্ষাগত ও সামাজিক বিকাশ ঘটায়।

 

৪. এই অধিকার নিশ্চিত ও বাস্তবায়ন করতে শরিকরাষ্ট্র প্রতিবন্ধী ব্যক্তিসহ, ইশারাভাষা ও ব্রেইলপদ্ধতিতে পারদর্শী শিক্ষক নিয়োগ এবং শিক্ষাব্যবস্থার সব স্তরে কর্মরত পেশাজীবী ও কর্মীদের প্রশিক্ষণের জন্য যথাযথ ব্যবস্থা নেবে। এই প্রশিক্ষণে প্রতিবন্ধিতা বিষয়ক সচেতনতা, প্রতিবন্ধী ব্যক্তিদের সহায়তার জন্য যোগাযোগের বিকাশমান ও বিকল্প পদ্ধতি, উপায় ও শৈলীর মাধ্যমে শিক্ষাদান পদ্ধতি ও উপকরণের ব্যবহারকে অন্তর্ভুক্ত করতে হবে।

 

৫) শরিকরাষ্ট্র নিশ্চিত করবে যেন প্রতিবন্ধী ব্যক্তিরা বৈষম্যহীনভাবে এবং অন্যদের সঙ্গে সমানভাবে সাধারণ উচ্চশিক্ষা, কারিগরি প্রশিক্ষণ, বয়স্ক শিক্ষা এবং জীবনব্যাপী শিক্ষাগ্রহণে সমর্থ হয়। এ লক্ষ্যে শরিকরাষ্ট্র প্রতিবন্ধী ব্যক্তিদের স¦াচ্ছন্দ্যের জন্য উপযোগী পরিবেশ ও ন্যায্য সুযোগ-সুবিধার ব্যবস্থা নিশ্চিত করবে।