সারা দেশে মানববন্ধন

6

 

অপরাজেয় প্রতিবেদক

 

খুলনা ও যশোর সংবাদদাতা জানান, প্রতিবন্ধী  মানুষের উন্নয়ন ও ক্ষমতায়ন নিশ্চিত করতে অবিলম্বে প্রতিবন্ধী ব্যক্তি উন্নয়ন অধিদফতরের কার্যক্রম শুরু না হলে কঠোর আন্দোলনে যাওয়ার হুঁশিয়ারি দেন খুলনা ও যশোর জেলা শহরের স্থানীয় নেতৃবৃন্দ।

প্রতিবন্ধী মানুষের স্বতন্ত্র অধিদফতর বাস্তবায়নের দাবিতে দেশব্যাপী শুরু হওয়া মানববন্ধনের প্রথম কর্মসূচি গত ৪ মার্চ খুলনা ও যশোরে পালিত হয়। এদিন সকালে জেলা প্রেসক্লাবের সামনে খুলনা দক্ষিণ বাংলা প্রতিবন্ধী ঐক্য পরিষদ ও পিএনএসপি যৌথভাবে মানববন্ধনের আয়োজন করলে বিভিন্ন ধরনের প্রায় তিন শ প্রতিবন্ধী মানুষের উপস্থিতি লক্ষ করা যায়।

 

মানববন্ধনে বক্তারা অবিলম্বে প্রতিবন্ধী মানুষের অধিদফতরের কার্যক্রম শুরু করার দাবি জানান সরকারের কাছে। তারা বলেন, সরকার নারীর উন্নয়ন ও ক্ষমতায়ন নিশ্চিত করতে মহিলাবিষয়ক অধিদপ্তর চালু করেছে। নারীর অগ্রগতি দেখে আমরা বুঝেছি প্রতিবন্ধী মানুষের ক্ষমতায়ন নিশ্চিত করবে এই অধিদফতর। সুতরাং অবিলম্বে এর কার্যক্রম শুরু না হলে আরও কঠোর আন্দোলনে যেতে হবে।

মানববন্ধনে বক্তব্য দেন দক্ষিণ বাংলা ঐক্য পরিষদের সভাপতি আ. মালেক, পিএনএসপির পরিচালক রফিক জামান, সমন্বয়ক ইফতেখার মাহমুদ, খুলনা মহানগর প্রতিবন্ধী উন্নয়ন পরিষদের শিরিন আক্তার, প্রতিবন্ধী কল্যাণ ও পুনর্বাসন ফাউন্ডেশনের মোমরেজ বিশ্বাস। আরও বক্তব্য দেন নূহ মোহাম্মদ শুনু, জালাল মোল্লা, উষার আলী, আল ফাহাদ, তরিকুল ইসলাম, আবুল কালাম আজাদ প্রমুখ।

 

একই দিন বিকেলে যশোর জেলা প্রেসক্লাবের মুজিব সড়কের সামনে যশোর অন্ধ কল্যাণ সংস্থা ও পিএনএসপি’র যৌথ আয়োজনে মানববন্ধন কর্মসূচি পালিত হয়। বেলা সাড়ে তিনটায় শুরু হয়ে বিকেল সাড়ে চারটা পর্যন্ত এ কর্মসূচি চলে। এতে প্রায় একশ প্রতিবন্ধী মানুষ অংশ নেন। কর্মসূচি চলাকালে বক্তারা বলেন, প্রধানমন্ত্রী অধিদফতর উদ্বোধন করার পর থেকেই খোদ সরকারি কর্মকর্তারাই তার বিরোধীতা করছেন। আমলাদের সাথে ফাউন্ডেশনের কর্মকর্তাসহ জাতীয় প্রতিবন্ধী ফোরামের নেতাদের বিরোধীতার তীব্র সমালোচনা করেন বক্তারা।

মানববন্ধনে বক্তব্য রাখেন, যশোর অন্ধ সংস্থার সাধারণ সম্পাদক মোক্তার আলী, প্রতিবন্ধী কল্যাণ সমিতির নির্বাহী পরিচালক ইদ্রিস আলী, অভয়নগর সবুজ সংঘের সভাপতি আলিম মোল্যা, প্রতিবন্ধী উন্নয়ন সংস্থার সভাপতি রুস্তম আলী পিএনএসপির পরিচালক রফিক জামান, সমন্বয়ক ইফতেখার মাহমুদ প্রমুখ।

 

সিরাজগঞ্জ ও পাবনা সংবাদদাতা জানান, সিরাজগঞ্জ সদর প্রতিবন্ধী কল্যাণ সংস্থা এবং পিএনএসপির যৌথ আয়োজনে ১১ মার্চ সকালে সিরাজগঞ্জ সদর চৌরাস্তা মোড়ে মানববন্ধন কর্মসূচি পালিত হয়। এতে বক্তব্য দেন রেজাউল করিম রতন, হাফেজ রেজাউল করিম, রফিক জামান, ইফতেখার মাহমুদসহ স্থানীয় অন্যান্য নেতৃবৃন্দ।

 

একই দিন বিকেলে পাবনা জেলার উত্তরণ প্রতিবন্ধী উন্নয়ন সংস্থার সঙ্গে পিএনএসপি যৌথভাবে মানববন্ধন আয়োজন করে পাবনা প্রেসক্লাবের সামনে। স্থানীয় প্রতিবন্ধী মানুষের উপস্থিতিতে ঘণ্টাকালব্যাপী মানববন্ধন কর্মসূচিতে সর্বস্তরের প্রতিবন্ধী মানুষ অংশগ্রহণ করেন। বক্তব্য দেন রফিক জামান, আশরাফ বিশ্বাস, কামরুজ্জামান, জাহিদুল আলম পলাশ, রকিবুল ইসলাম, ইফতেখার মাহমুদ প্রমুখ।

 

দিনাজপুর ও ঠাকুরগাঁও সংবাদদাতা জানান, পিএনএসপির আহ্বানে সাড়া দিয়ে গত ১৮ মার্চ সকালে দিনাজপুর প্রেসক্লাবের সামনে মানববন্ধনে অংশগ্রহণ করে স্থানীয় প্রতিবন্ধী ব্যক্তি সংগঠনগুলো। জেলার দিশারী প্রতিবন্ধী সংস্থা, উত্তরণ প্রতিবন্ধী সংস্থা এবং সম্প্রীতি প্রতিবন্ধী উন্নয়ন সংস্থা পিএনএসপির সঙ্গে যৌথভাবে আয়োজন করে এ কর্মসূচির। মানববন্ধনে বক্তব্য দেন পিএনএসপির পরিচালক রফিক জামান ও সমন্বয়ক ইফেখার মাহমুদ, দিনাজপুর প্রতিবন্ধী উন্নয়ন সংস্থার সাধারণ সম্পাদক আশরাফুল ইসলাম, সম্প্রীতি প্রতিবন্ধী উন্নয়ন সংস্থার সাধারণ সম্পাদক তানজিবা বেগম সীমা, মমতা পল্লী উন্নয়ন সংস্থার নির্বাহী পরিচালক ইয়াকুব আলীসহ অন্যান্য প্রতিবন্ধী নেতারা।

 

একই দিনে বিকেলে ঠাকুরগাঁও সদর চৌরাস্তার সামনে অনুষ্ঠিত মাবনবন্ধনেও স্থানীয় প্রতিবন্ধী মানুষ, তাদের প্রতিনিধিত্বকারী সংগঠন সমবেত হয়ে অধিদফতর বাস্তবায়নের দাবিতে বক্তব্য দেন। যৌথভাবে এ মানববন্ধন কর্মসূচি আয়োজন করে পিএনএসপি ও অন্বেষা প্রতিবন্ধী শিক্ষা রক্ষণাবেক্ষণ ও পুনর্বাসন কেন্দ্র।

 

রাজবাড়ী সংবাদদাতা জানান, রাজবাড়ী প্রতিবন্ধী ব্যক্তি উন্নয়ন পরিষদ, জেলা সদরের আলীপুর প্রতিবন্ধী উন্নয়ন সংস্থা ও পিএনএসপির যৌথ উদ্যোগে রাজবাড়ী প্রেসক্লাবের সামনে গত ২৪ মার্চ মানববন্ধন কর্মসূচি পালিত হয়। এ সময় বক্তব্য রাখেন, আরিফুল ইসলাম, মমতাজ উদ্দিন, কাজী আব্দুল কুদ্দুস, রবিউল ইসলাম, একরামুল ইসলাম, আব্দুুল কুদ্দুস মোল্লা, আজগর আলী প্রমুখ স্থানীয় প্রতিবন্ধী নেতৃবৃন্দ।