এনজিও নেতাদের মিথ্যার ফানুস বনাম এসডিজি

30

 

শরীফুল ইসলাম

সরকারের পরিকল্পনা কমিশনের সাধারণ অর্থনীতি বিভাগ টেকসই অভীষ্ট অর্জন (এসডিজি) বিষয়ক ভলানটারি ন্যাশনাল রিভিউ (ভিএনআর) প্রতিবেদন উপস্থাপন করতে যাচ্ছে জাতিসংঘে।

ভিএনআরে প্রতিবন্ধী মানুষের বাস্তব অবস্থা তুলে ধরতে সিপিডির অর্থনীতি গবেষক দেবপ্রিয় ভট্টাচার্য এক দলগত আলোচনায় অংশ নেন গত ২৭ এপ্রিল। এদিন আলোচনা সভাটি আয়োজন করে দেশের শীর্ষস্থানীয় একটি সেবা প্রদানকারী সংস্থা। মূলধারার এমন একজন নামকরা অর্থনীতিবিদ প্রতিবন্ধী মানুষের কার্যক্রম বিষয়ে আগ্রহী হয়েছেন বলে তাকে ধন্যবাদ জানাই। মূলত তার বক্তব্য শুনতেই এদিন আমার ওই আলোচনায় উপস্থিত থাকা। তবে সেখানে গিয়ে মিথ্যাবাদী রাখাল আর বাঘের গল্পটা নতুনভাবে শুনলাম।

 

এনজিও নেতারা এখনও প্রতিবন্ধী মানুষের খাত নিয়ে মিথ্যার ফানুস তৈরি করছে, তার চাক্ষুষ প্রমাণ পেলাম এ সভায়। বর্তমানে যে এনজিওতে ১১ জন কর্মী নেই; তাদেরই দাবি ছিলো ১১ জেলায় ১১ হাজার প্রতিবন্ধী মানুষকে সেবা প্রদান করছেন তারা! সত্যিই বিস্ময়কর!!

 

যেখানে বিদেশি দাতাদের অনুদানের হার কমে যাওয়ার কারণে আশপাশের পরিচিত এনজিও কর্মীরা প্রতিনিয়ত চাকরি হারাচ্ছেন; অথবা কম বেতনে কাজ করতে বাধ্য হচ্ছেন, সেখানে এই অবস্থাতেই এখনো কিছু এনজিও নেতা তাদের অতীতের (কয়েক বছর আগের) কার্যক্রমকে বর্তমান কাজ বলে চালিয়ে দেওয়ার চেষ্টা করছেন। এখনও তারা বাঘ-হাতি মারছেন মুখে মুখে। অথচ অর্থের অভাবে আয়োজকবৃন্দ এই আলোচনা সভার আলোচ্য বিষয়ের প্রবন্ধ পেপারের ফটোকপি পর্যন্ত দিতে পারেননি আমন্ত্রিত অতিথিদের হাতে।

তবে কি বিদেশি দাতারা সব অর্থছাড় বন্ধ করলেই এই মানুষগুলো সত্যিকার অবস্থা স্বীকার করবেন? তাদের এ হঠকারিতার পথ পরিহার করে সরকারের সঙ্গে এত দিন পরিচালিত সামাজিক সংগঠনগুলোর অর্থায়ন প্রক্রিয়া নিয়ে আলোচনা করা উচিত।

 

সেদিন প্রতিবন্ধী নাগরিক সংগঠনের পরিষদের (পিএনএসপি) সহযোগী সমন্বয়ক হিসেবে উপস্থিত ছিলাম সেখানে। খুব ভালো লেগেছে এই ভেবে যে দেড় বছর আগে ডিসঅ্যাবিলিটি অ্যান্ড ডিজাস্টার সম্মেলন উদ্যাপন আলোচনায় আমাদের প্রতিবন্ধী নাগরিক সংগঠনের নেটওয়ার্ক পিএনএসপি ‘প্রতিবন্ধিতা না প্রতিবন্ধী মানুষ’ এ নেতিবাচক মানসিকতার বিরুদ্ধে বড় ধরনের অবস্থান নিয়েছিল। টার্নিং পয়েন্ট ফাউন্ডেশনের নির্বাহী পরিচালক জীবনদা দেবপ্রিয় ভট্টাচার্যের সামনে এই বিষয়টি তুলেছিলেন বলে তাকেও ধন্যবাদ জানাচ্ছি। অন্তত অতীতে যারা অকারণে বিরোধিতা করেছিল, তাদের মুখের ওপর দেবপ্রিয় ভট্টাচার্য স্বীকার করে নিয়েছিলেন, ‘প্রতিবন্ধিতা’ নয় প্রতিবন্ধী মানুষই এসডিজির মুখ্য বিষয়। এ সভায় পিএনএসপির পক্ষ থেকে আমি অনুরোধ জানিয়েছিলাম বেদে, পাহাড়ী, আদিবাসী, পতিতাসহ বিভিন্ন বঞ্চিত জনগোষ্ঠির মধ্যে যারা প্রতিবন্ধী মানুষ তাদের বিষয়ে যেন কার্যক্রম গ্রহণ করা হয় এসডিজি অর্জনে আমরা বাংলাদেশি প্রতিবন্ধী জনগণও কেউ যেন বাদ না থেকে যাই।