ঢাকার ফুটপাতে টেকটাইল

48

 

মো. সুজন

ঢাকার ফুটপাতগুলোকে দৃষ্টি প্রতিবন্ধী ব্যক্তিবান্ধব করতে কাজ চলছে দুই সিটি কর্পোরেশনের। ইতোমধ্যে শাহবাগ, গুলিস্তান ও গুলশান এলাকার আশপাশের বেশ কিছু সড়কের ফুটপাতে সতর্কীকরণ ও নির্দেশনামূলক টেকটাইল টাইলস বসানো হয়েছে।

তবে উত্তর সিটি কর্পোরেশনের আওতাধীন গুলশানের প্রধান কিছু সড়কের দুই পাশের ফুটপাতে শুধু সতর্কীকরণ টাইলস স্থাপন করা হয়েছে। প্রতিবন্ধী ব্যক্তিদের চাহিদা বিষয়ে অবগত না থাকার ফলে নির্দেশনা টাইলস স্থাপনের বিষয়টি কর্তৃপক্ষের নজর এড়িয়ে গেছে বলে মনে করছেন সংশ্লিষ্টগণ।

জানা যায়, সরকারের নির্দেশনায় ঢাকা সিটি কর্পোরেশনের আওতায় চলতি বছরের জানুয়ারিতে এই কাজ শুরু হয়। ঢাকার ফুটপাতগুলোতে দৃষ্টি প্রতিবন্ধী মানুষের জন্য সতর্কীকরণ ও নির্দেশক এই দুই ধরনের টেকটাইল টাইলস স্থাপনের কাজে প্রতিবন্ধী ব্যক্তি সংগঠনের সঙ্গে সম্পৃক্ততা না থাকার ফলে উত্তর সিটি কর্পোরেশন শুধু সতর্কীকরণ চিহ্নিত টেকটাইল স্থাপন করে গুলশানের কিছু সড়কে। অপরদিকে গুলিস্তানে দক্ষিণ সিটি কর্পোরেশন তাদের পাইলট প্রকল্প শুরুর আগেই নিজ উদ্যোগে প্রবেশগম্যতা নিয়ে কর্মরত প্রতিবন্ধী ব্যক্তি সংগঠন বাংলাদেশ সোসাইটি ফর দ্য চেঞ্জ এন্ড অ্যাডভোকেসি নেক্সাস (বি-স্ক্যান)  কে আমন্ত্রণ জানায় পর্যবেক্ষণ ও পরামর্শের জন্য।

জানুয়ারিতে দক্ষিণ সিটি কর্পোরেশন অতিরিক্ত প্রধান প্রকৌশলী মো. আসাদুজ্জামান এ বিষয়ে আলোচনার মাধ্যমে সুষ্ঠু সমাধানের লক্ষ্যে বি-স্ক্যানকে আমন্ত্রণ জানান। এ পরিপ্রেক্ষিতে গত ১৯ জানুয়ারি, ২০১৭ দক্ষিণ সিটি কর্পোরেশনের সঙ্গে বি-স্ক্যানের সাধারণ সম্পাদক সালমা মাহবুব এবং কনসার্ন উইমেন ফর ফ্যামিলি ডেভেলপমেন্টের (সিডব্লিউএফডি) পলিসি অ্যাডভোকেসি কর্মকর্তা ইফতেখার মাহমুদসহ তিন সদস্যের প্রতিনিধিদলের এক বৈঠক হয়। এ বৈঠকে ফুটপাতকে প্রতিবন্ধী ব্যক্তিবান্ধব বিশেষত দৃষ্টি প্রতিবন্ধী ব্যক্তিবান্ধব করতে টেকটাইল টাইলসের নকশা এবং ইমারত নির্মাণ বিধিমালা অনুযায়ী টাইলস স্থাপন বিষয়ে আলোচনা হয়।

এ বৈঠকে দৃষ্টি প্রতিবন্ধী মানুষের সহজ চলাচলের জন্য দুই ধরনের টাইলস ব্যবহারের বিষয়ে দক্ষিণ সিটি কর্পোরেশনকে অবগত করে বি-স্ক্যান। বি-স্ক্যান জানায় ছোট ছোট উঁচু বৃত্তাকার যুক্ত (dotted) বা সতর্কীকরণ (warning) টাইলস এবং লম্বা ধরনের নির্দেশনামূলক (directional) টাইলস রঙের ভিন্নতা রেখে স্থাপন করা হলে স্বল্প দৃষ্টি প্রতিবন্ধী মানুষ এবং সম্পূর্ণ দৃষ্টি প্রতিবন্ধী মানুষেরা স্বাধীনভাবে চলাচল করতে সক্ষম হন। তবে বাংলাদেশে সতর্কীকরণ টাইলসটি সহজলভ্য হলেও নির্দেশক টাইলসটি তৈরি হয় না।

এ বিষয়ে সালমা মাহবুব জানালেন, নির্দেশক টাইলসটি দেশে প্রস্তুত না হওয়ায় যমুনা টাইলস প্রতিষ্ঠানের সঙ্গে এ বিষয়ে আলোচনা করে বি-স্ক্যান। যমুনা কর্তৃপক্ষকে এ বিষয়ে তথ্য সরবরাহ করার পর তারা এ ধরনের টাইলস তৈরি করতে আগ্রহী হলে দক্ষিণ সিটি কর্পোরেশনের সঙ্গে তাদের সমন্বয় করিয়ে দেয় বি-স্ক্যান। এরপর দক্ষিণ সিটি কর্পোরেশনের অঞ্চল-২-এর অধীনে গুলিস্তানের জিরো পয়েন্টের ফুটপাতে প্রথম এই টাইলস স্থাপনের পাইলট প্রকল্প শুরু হয় ফেব্রুয়ারিতে।

তিনি আরও জানালেন, কাজ শুরু হওয়ার পর দক্ষিণ সিটি কর্পোরেশন থেকে ফুটপাতের কাজ পর্যবেক্ষণ ও পরামর্শের জন্য বি-স্ক্যানকে আবার আমন্ত্রণ জানালে একটি প্রতিনিধিদল গত ২৩ ফেব্রুয়ারি জিরো পয়েন্টের ফুটপাত পরিদর্শন করে কিছু পরামর্শ দিয়ে আসে। সে অনুযায়ী পরবর্তীকালে শাহবাগস্থ বঙ্গবন্ধু মেডিকেলের সামনের রাস্তায় সংশোধন ও পরিবর্তন এনে বাকি কাজগুলো করে দক্ষিণ সিটি কর্পোরেশন। বি-স্ক্যান ৭ জুন আবারও পরিদর্শন করে আরও বেশ কিছু সুপারিশ দিলে তা পরে কার্যকর করার আশ্বাস দিয়েছেন দক্ষিণ সিটি কর্পোরেশনের অঞ্চল-১-এর নির্বাহী প্রকোশলী মুন্সী মো. আবুল হাশেম।

প্রসঙ্গক্রমে বি-স্ক্যান জানায়, যমুনা টাইলস ছাড়াও নাভানা, এরিস্ট্রকেটসহ আরও বেশ কিছু টাইলস ব্যবসায়ী প্রতিষ্ঠান এখন দেশেই নির্দেশক টাইলস প্রস্তুত করছে।

এদিকে উত্তর সিটি করপোরেশন ফুটপাত উন্নয়ন প্রকল্প বাস্তবায়নের শুরু থেকেই অজ্ঞতার কারণে সম্পূর্ণ ফুটপাতজুড়ে শুধু সতর্কীকরণ টাইলস বসিয়ে কাজ করেছে, যেখানে সতর্কীকরণ টাইলস কেবল অবস্থান পরিবর্তনের জন্য দৃষ্টি প্রতিবন্ধী মানুষকে সতর্ক করতে ব্যবহার করা হয়। নির্দেশনা টাইলস লম্বালম্বিভাবে ব্যবহৃত হয়, জানালেন সিডব্লিউএফডির পলিসি অ্যাডভোকেসি কর্মকর্তা ইফতেখার মাহমুদ। এ বিষয়ে তিনি আরও বলেন, প্রতিবন্ধী মানুষের উন্নয়নে গৃহীত কার্যক্রমে এ ধরনের হাস্যকর ভুল সমাজ ও রাষ্ট্রকাঠামোর অবহেলার মনোভাব বলেই প্রতীয়মান হয়।

 

 
গুলশানের ফুটপাতে বসানো সঠিক টেকটাইল (বামে),              আগে ভুল করে যে টাইলস বসানো ( ডানে) হয়েছিল।

 

তিনি আরও জানান, ভিন্ন রঙের ব্যবহার না থাকার ফলে স্বল্প দৃষ্টি প্রতিবন্ধী মানুষের জন্য দূর থেকে আলাদা করে চিহ্নিত করা সম্ভবপর হয় না এই টাইলসগুলো। তাছাড়া দৃষ্টি প্রতিবন্ধী মানুষের স্বাধীন চলাচলে মনের মধ্যে একটি ম্যাপ তৈরিতে সহযোগিতা করে বলেই সঠিক টাইলসের ব্যবহার অত্যন্ত জরুরি।

বি-স্ক্যানের সাধারণ সম্পাদক সালমা মাহবুব জানালেন, উত্তর সিটি কর্পোরেশনকে এই বিষয়ে দৃষ্টি আকর্ষণ এবং পরামর্শ প্রদানের জন্য বি-স্ক্যান নিজ উদ্যোগে উত্তর সিটি কর্পোরেশনের প্রধান প্রকৌশলী ব্রিগেডিয়ার জেনারেল মো. সাঈদ আনোয়ারুল ইসলামের সঙ্গে গত ৪ এপ্রিল সাক্ষাৎ করে। ফুটপাতে টেকটাইল টাইলসের নকশা এবং ইমারত নির্মাণ বিধিমালা অনুযায়ী টাইলস তৈরির তথ্য প্রদান ও ভিডিও চিত্রের মাধ্যমে বাস্তব ধারণা দেওয়া হয় তাদের। এ সময় প্রধান প্রকৌশলী স্বীকার করেন, অসচেতনতার কারণে তারা ভুল টাইলস বসিয়েছেন।

 

সালমা মাহবুব আরও বলেন, প্রধান প্রকৌশলী আন্তরিকভাবেই আমাদের পরামর্শ শোনেন এবং তাৎক্ষণিক ফোনে মেয়র আনিসুল হকের সঙ্গে কথা বলে বিষয়টি অবহিত করলে মেয়র বি-স্ক্যানের পরামর্শ অনুসারে কাজ শুরু করার নির্দেশনা দেন।

উত্তর সিটি কর্পোরেশনের সুপারিনটেনডেন্ট ইঞ্জিনিয়ার শরীফ উদ্দিন জানিয়েছেন, গুলশানের ৬৩ নম্বর সড়ক এবং তার আশপাশের আরও কিছু সড়কে টেকটাইল টাইলস স্থাপনের কাজ শুরু হয়েছে এবং পরে মিরপুর, তেজগাঁও, বনানী ইত্যাদি সড়কের ফুটপাতে টাইলস স্থাপন করা হবে।

 

অন্যদিকে দক্ষিণ সিটি কর্পোরেশনের কাজ চলছে শাহবাগ, গুলিস্তান, দিলখুশায়। দক্ষিণের নির্বাহী প্রকৌশলী মুন্সী মো. আবুল হাশেম এ প্রতিবেদককে জানান,

বর্তমানে বৃষ্টির জন্য কাজ বন্ধ আছে। তবে সরকারের চলমান এই প্রকল্পে ঢাকার সব ফুটপাতেই এ ধরনের  টাইলস স্থাপন এবং দুদিকে ঢালু করা হবে। এ ছাড়া কিছু রাস্তার ফুটপাত সংস্কার করে তারপর কাজ শুরু হবে। অপর এক প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, সরকারের ৭০ ভাগ এবং দক্ষিণ সিটি কর্পোরেশনের ৩০ ভাগ অর্থায়নে ফুটপাত উন্নয়ন প্রকল্প বাস্তবায়নের কাজ শেষ হবে ২০১৯ নাগাদ। এটি শেষ হলে আরও একটি প্রকল্প শুরু হবে।