বি-স্ক্যান কার্যক্রম

45

শীত বস্ত্র বিতরণ
৭ ডিসেম্বর ২০১২ তারিখে কুঁড়িগ্রাম জেলার উলিপুর উপজেলার কালাপানি বজরা গ্রামে বি-স্ক্যান, মুকুল, হোপ ফর অল, আমারব্লগ.কম এবং অথেনটিক ফাউন্ডেশন এর যৌথ আয়োজনে গরীব শীতার্তদের মাঝে শীতববস্ত্র বিতরণ করা হয়েছে। প্রতি বছরের ন্যায় এবারও এই কার্যক্রম পরিচালিত হলো। এবার শীতবস্ত্র বিতরণ সহ ফ্রি মেডিকেল ক্যা¤প এর ব্যবস্থা ছিল। বিভিন্ন হাসপাতালের ডাক্তারগণ স্বেচ্ছায় প্রায় ৫০০ (পাঁচ শত) এর অধিক গরীব গ্রামবাসীকে চিকিৎসা সেবা প্রদান করেন। চিকিৎসা সেবার একটি বড় ভুমিকায় স্কয়ার ফার্মাসিউটিক্যালস্ লিমিটেড এর পৃষ্ঠপোষকতায় বিনামূল্যে প্রয়োজনীয় ঔষধ দুঃস্থদের মাঝে বিতরণ হয়।

আর্থিক সহায়তা
১৪ই ডিসেম্বর, ২০১২ আগ্রাবাদের শান্তিবাগস্থ শারীরিক ও মানসিক প্রতিবন্ধী ইশতিয়াক আলম রাফির বাবা জাহাঙ্গির আলম এর ব্যবসার উদ্দেশ্যে বি-স্ক্যান এর যাকাত ফান্ড হতে ২০ হাজার টাকা আর্থিক সহযোগিতা দেয়া হয়। রাফি ছোটবেলা থেকেই মানসিক ও শারীরিক সমস্যায় আক্রান্ত। পরিবারের আর্থিক অবস্থা ভালো না হওয়াতে বুদ্ধি প্রতিবন্ধী শিশুদের স্কুলে নিয়ে যাওয়া সম্ভব হয়নি। এই অবস্থায় তার চিকিৎসাও ঠিক মতো হয়নি। রাফির বাবা বেশ অনেকদিন যাবত চাকুরী হারিয়ে বেকার অবস্থায় থাকার ফলে তারা আর্থিক সমস্যায় দিন কাটাচ্ছিলেন । প্রাপ্ত অর্থে তারা একটি সেলুনে শেয়ার ব্যবসা করার ইচ্ছে প্রকাশ করেছেন এবং বি-স্ক্যান এর পরামর্শে ইতিমধ্যে তারা রাফিকে চট্টগ্রামের এ কে খান সিআরপি তে নিয়ে চিকিৎসা শুরু করেছেন।

অপরদিকে, গত ০৪, জানুয়ারী ২০১৩ কাপ্তাই নিবাসী শারীরিক প্রতিবন্ধী উম্মে সালমাকে কম্পিউটার প্রশিক্ষণের মাধ্যমে আত্মকর্মসংস্থানের পথ খুঁজে নেবার লক্ষ্যে একটি ল্যাপটপ প্রদান করা হয়। অনেক কষ্টে দশম শ্রেণী পর্যন্ত পড়ার পর শারীরিক অবস্থার অবনতির কারণে স্কুলে যাওয়া সম্ভব হয়নি তার পক্ষে। এরপর থেকে চারদেয়ালের বন্দী জীবনে প্রচন্ড হতাশায় সালমা কেবল মৃত্যুর প্রতীক্ষায় কাটিয়েছে এতদিন। ল্যাপটপটি পেয়ে কম্পিউটার প্রশিক্ষণ নিয়ে পরিবারের বোঝা হয়ে না থেকে একটা কিছু করতে পারবে এই ভেবেই সে অনেক খুশি ।
ময়না বেগম ছোটবেলা টাইফয়েডে আক্রান্ত হওয়ার পর ডান হাত ও ডান পায়ের কার্যক্ষমতা হারিয়ে ফেলেন। একেবারে চলতশক্তিহীন না হলেও ভারি কোন কাজ তার পক্ষে করা সম্ভব হয়ে উঠে না। স্বামী পরিত্যাক্তা ময়না বেগমের কোন সন্তান নেই, বোনের বাড়ীতে থাকেন। কিন্তু তিনি এভাবে গলগ্রহ হয়ে থাকতে রাজি নন তাই ব্যবসার করার উদ্দেশ্যে আর্থিক সহায়তার জন্য বি-স্ক্যান এর সাথে যোগাযোগ করেন। গত ১৬ ফেব্র“য়ারি, ২০১৩ ময়না বেগমকে বি-স্ক্যান এর যাকাত ফান্ড থেকে ১০ হাজার টাকা প্রদান করা হয়েছে।

শিক্ষা বৃত্তি
বাড্ডা এলাকায় বসবাসরত আরাফাত ইসলাম বহুমূখী প্রতিবন্ধী । টাইফয়েড জ্বরের পরে ঠিকমত চিকিৎসার অভাবে নানারকম প্রতিবন্ধিতা তৈরি হয়েছে। সঠিকভাবে কথা বলতে পারে না, একটানা বেশিদূর একা হেটে যেতে পারে না, কলম ধরতে এবং লিখতে অসুবিধা হয়। তারপরও তার মেধা ভাল, বুদ্ধিমত্তা স্বাভাবিক, লেখাপড়ার প্রচন্ড আগ্রহ। পূর্ব-উত্তর বাড্ডা প্রাইমারি স্কুল – এর ২য় শ্রেনীর ছাত্র আরাফাতের বাবা একজন সাধারণ দিন মুজুর। ছেলের লেখাপড়ার সহায়তার জন্য সাহায্যের আবেদন করেন বি-স্ক্যান এর কাছে। ১৬ ফেব্রুয়ারি, ২০১৩ থেকে আরাফাতকে প্রতি মাসে ১০০০ টাকা করে মাসিক বৃত্তি দেয়ার সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে।