নির্বাচনকে সামনে রেখে প্রতিবন্ধী জনগোষ্ঠীর পক্ষে নির্বাচন কমিশনের কাছে খোলা চিঠি

43

প্রতিবন্ধী মানুষের সামাজিক ও অর্থনৈতিক উন্নয়নের পাশাপাশি নাগরিক ও রাজনৈতিক অধিকারও নিশ্চিত হওয়া প্রয়োজন। গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশের সংবিধানের ২৮নং অনুচ্ছেদে বলা আছে-‘‘কেবল ধর্ম, বর্ণ, গোষ্ঠী, নারী, পুরুষ ভেদে বা জন্মস্থানের কারণে কোনো নাগরিকের প্রতি রাষ্ট্র বৈষম্য প্রদর্শন করবে না’’। এছাড়াও সংবিধানের মৌলিক অধিকার অনুচ্ছেদে আরো আছে, রাষ্ট্রের নাগরিক হিসেবে প্রতিবন্ধী ব্যক্তি অপ্রতিবন্ধী ব্যক্তির ন্যায় সম অধিকার ভোগ করবে। রাষ্ট্রের সর্বোচ্চ আইন দ্বারা প্রতিবন্ধী ব্যক্তিদের অধিকার স্বীকৃত রয়েছে এখানে। সাংবিধানিক অধিকার নিশ্চিত করতে ২৮নং অনুচ্ছেদে অনুযায়ী তাদের ভোটাধিকার প্রয়োগ এবং জাতীয় নির্বাচনে অংশগ্রহণের মাধ্যমে সংসদে প্রতিনিধিত্ব করার সুযোগ সৃষ্টি করতে হবে। স্থানীয় ও জাতীয় নির্বাচনে ভোট প্রদান এবং প্রতিনিধি হিসেবে অংশগ্রহণে প্রয়োজন রাজনৈতিক অঙ্গীকার।

 

সামনেই দশম জাতীয় সংসদ নির্বাচন। প্রতিবন্ধী ব্যক্তিদের ভোটদানের অধিকার নিশ্চিত করতে নির্বাচনকালীন কিছু ব্যবস্থা গ্রহণ জরুরী। তাই তাদের যথাযথ ভোটপদ্ধতি গ্রহণে একটি নীতিমালা প্রণয়নে নির্বাচন কমিশনকে নিম্নে উল্ল্যেখিত বিষয়গুলো দ্রুত নিশ্চিত করতে সবিনয় অনুরোধ জানাচ্ছিঃ

 

* ভোটকেন্দ্রে প্রতিবন্ধী মানুষের উপস্থিতি নিশ্চিত করতে প্রতিবন্ধী ভোটারদের বহনকারী যানবাহন চলাচলের অনুমতি প্রদান।

 

* ভোটের দিন প্রতিবন্ধী ভোটারদের আলাদা সারির ব্যবস্থা করণ, যাতে তারা স্বল্প সময়ে এবং স্বাচ্ছন্দ্যে ভোট দিতে পারেন।

 

* ভোটকেন্দ্রে প্রতিবন্ধী মানুষদের বিশেষত শারীরিক প্রতিবন্ধী মানুষের জন্য নিচতলায় বিশেষ বুথ স্থাপনের ব্যবস্থা করণ এবং তাদের সুবিধার্থে ভোটকেন্দ্রে র‌্যাম্প স্থাপন।

 

* দৃষ্টি প্রতিবন্ধী ব্যক্তিদের জন্য ব্রেইল বা ট্রেইল ব্যালট পেপারের ব্যবস্থা করণ এবং তাদের পছন্দমতো সহযোগি নেওয়ার অনুমতি প্রদান।

 

* গুরুতরমাত্রার প্রতিবন্ধী ও বুদ্ধি প্রতিবন্ধী ব্যক্তিদের ভোট প্রদানের জন্য বিশেষ ব্যবস্থা গ্রহণ।

 

* নির্বাচন পর্যবেক্ষক হিসেবে ভোটের দিন প্রতিবন্ধী ব্যক্তির অংশগ্রহণ নিশ্চিত করণ।

 

* ভোটের দিন নির্বাচন কেন্দ্রের সহিংসতা থেকে রক্ষায় নিরাপত্তা প্রদানের ব্যবস্থা করণ।

 

* প্রতিটি কেন্দ্রে প্রতিবন্ধিতা বিষয়ক ব্যানার, পোস্টার সর্বসাধারনের জন্য টানানোর ব্যবস্থা গ্রহণ এবং সেখানে তাদের উপস্থিতি নিশ্চিত করতে গণমাধ্যমে ব্যপক প্রচারণা চালান।

 

* প্রতিটি কেন্দ্রের পোলিং অফিসার তথা রিটার্নিং অফিসারকে প্রতিবন্ধী ব্যক্তিগণকে ভোট প্রদানে সার্বিক সহায়তা প্রদানের জন্য বিশেষ নির্দেশনা প্রদান।

 

ভোট প্রদান প্রতিটি নাগরিকের মৌলিক অধিকার। শুধুমাত্র মানব সৃষ্ট সামান্য প্রতিবন্ধকতা প্রতিবন্ধী ব্যক্তিকে সেই অধিকার থেকে বঞ্চিত করতে পারে না। অপ্রাপ্ত এই অধিকারগুলো থেকে বঞ্চিত হতে হতে অনেকটা যেন অভ্যস্ত হয়ে উঠেছি আমরা। এখন সময় এসেছে দৃষ্টিভঙ্গি পরিবর্তনের। গণমাধ্যমে ব্যাপক প্রচারণা এতে মূখ্য ভূমিকা রাখতে পারে। তাদের অধিকার সম্পর্কে জনগণের মাঝে পরিস্কার ধারণা দেওয়া গেলেই দৃষ্টিভঙ্গির পরিবর্তন সম্ভব। আর একমাত্র সচেতনতা সৃষ্ঠির মাধ্যমেই তাদের সহায়ক যাতায়াত সুবিধা, সর্বজনীন প্রবেশগম্যতাসহ প্রয়োজনীয় কিছু ব্যবস্থা গ্রহণের মাধ্যমেই প্রতিবন্ধী মানুষের ভোটাধিকার নিশ্চিত করা সম্ভব।

 

মেজর জহিরুল ইসলাম।

উত্তরা, ঢাকা।