চট্টগ্রামে প্রতিবন্ধী ব্যক্তি সংগঠন রাইট এ্যাকশন ফর ডিজএ্যাবিলিটি (র‌্যাড)

71

 

বাংলাদেশের মোট জনসংখ্যার ১০ ভাগ মানুষ বিভিন্ন ধরণের প্রতিবন্ধিতার সম্মুখীন হয়ে সমাজের মূলধারা হতে অনেকটা বিচ্ছিন্নভাবে বসবাস করছে। শুধুমাত্র অবহেলা ও বঞ্চনার শিকার হচ্ছে প্রতিনিয়ত। হচ্ছে অধিকার বঞ্চিত। কিন্তু অধিকার অর্জিত হলে বিশাল এই জনগোষ্ঠী আত্মকর্মসংস্থানের মাধ্যমে সমাজ এবং দেশ গড়ার কাজে সহযোগিতা করতে এবং নিজের সক্ষমতার প্রমাণ দিতে পারে। বোঝা হয়ে নয় দেশের গর্বিত নাগরিক হয়ে তারা মাথা উঁচু করে বেঁচে থাকতে পারে। আর এই অর্জনের লক্ষ্য নিয়েই গঠিত হয় রাইট এ্যাকশন ফর ডিজএ্যাবিলিটি (র‌্যাড)।

 

২০১০ সালে শুরু হতে যাত্রা করা এই বেসরকারি সংগঠনটি প্রতিবন্ধী ব্যক্তি দ্বারা পরিচালিত স্ব-সংগঠন হিসেবে কাজ করছে চট্টগ্রামে। প্রায় সাড়ে তিনশো সদস্যের মাঝে ৮০ শতাংশ বিভিন্ন ধরণের প্রতিবন্ধী মানুষ (সাধারণ সদস্য) এর সমন্বয়ে গঠিত এই সংগঠনটির ৯ সদস্য বিশিষ্ট নির্বাহী কমিটিতে প্রতিবন্ধী মানুষ রয়েছেন ৫ জন, যারা প্রত্যেকেই দৃষ্টি প্রতিবন্ধী সদস্য। সদস্যগণ নিজেরাই চাঁদা তুলে এবং গণ্যমান্য ব্যক্তি বা সংগঠনের সহযোগিতায় বিগত পাঁচ বছরে অবহেলিত ও বঞ্চিত এই জনগোষ্ঠীর অধিকার প্রতিষ্ঠার লক্ষ্য ও উদ্দেশ্য নিয়ে বিভিন্ন ধরণের ভোকেশনাল ট্রেনিং এর মাধ্যমে তাদের কর্মসংস্থানসহ বিভিন্ন কার্যক্রম চালিয়ে যাচ্ছে। সম্প্রতি চট্টগ্রাম জেলা সমাজসেবা

কার্যালয় হতে রেজিস্ট্রেশন নেবার প্রক্রিয়াও শুরু করেছে সংস্থাটি।

 

র‌্যাড এর অন্যান্য উল্লেখ্যযোগ্য কার্যক্রমসমূহ হলোঃ

প্রতিবন্ধী ও সুবিধাবঞ্চিত শিশুদের জন্য সোনালী আলো শিক্ষা প্রকল্প- এর আওতায় প্রতিবন্ধী শিশুদের বিভিন্ন স্কুলে ভর্তিতে সহযোগিতা, প্রি-প্রাইমারী শিক্ষা প্রদান এবং প্রতিবন্ধী ও সুবিধা বঞ্চিত শিশুদের শিক্ষা জীবন অঙ্কুরেই যেন ঝরে না পড়ে তার জন্য টিউটোরিয়াল এর ব্যবস্থা রাখা হয়েছে। শিশুরা যেন বাসায় বসে স্কুলের পড়া ঠিকমত করতে পারে তা লক্ষ্য রাখা হয় টিউটোরিয়ালে। এছাড়াও দৃষ্টি প্রতিবন্ধী শিশুদের জন্য ব্রেইল শিক্ষা প্রদান করাও এই প্রকল্পের অন্যতম উদ্দেশ্য।

 

নকশী বাংলা ও হেনাস বিউটি পার্লার গঠনের মূল লক্ষ্য ছিল ভোকেশনাল ট্রেনিং এর মাধ্যমে প্রতিবন্ধী ও সুবিধা বঞ্চিত নারী-শিশুদের স্বাবলম্বী করে গড়ে তোলা। সেই লক্ষ্যে র‌্যাড এর রয়েছে নিজস্ব প্রশিক্ষণ কেন্দ্র নকশী বাংলা ও হেনাস বিউটি পার্লার। নকশী বাংলায় যেসব প্রশিক্ষণ দেয়া- সেলাই ও কাটিং, ব্লক বাটিক, কারচুপি জারদৌসি, নকশী সেলাই, নকশী প্লাস্টিক ব্যাগ, পুঁথির শো-পিছ, পুঁথির ব্যাগ, কম্পিউটার কোর্স, বিউটিশিয়ান প্রশিক্ষণ এবং বিভিন্ন ধরণের রান্না প্রশিক্ষণ ইত্যাদি। প্রতিবন্ধী মানুষের জন্য বিশেষ ব্যবস্থায় কম্পিউটার ও ব্রেইলে ক¤িপউটার শেখানো হয়। প্রশিক্ষণ শেষে কর্মসংস্থানের জন্য প্রশিক্ষণার্থীদের দ্রব্যাদি বাজারজাত করার লক্ষ্যে রয়েছে র‌্যাড এর নিজস্ব শো-রুম। ফলে শিক্ষার্থীদের বেকার বসে থাকার সুযোগ নেই।

 

সাইবাহ কমিউনিটি ক্লিনিক এর মাধ্যমে প্রতিবন্ধী ও দুস্থদের স্বাস্থ্য সেবা প্রদান করা হয়। আউটডোরে প্রতিদিন প্রতিবন্ধী ব্যক্তিদের বিনামূল্যে চিকিৎসা সেবা প্রদান করেন চিকিৎসকগণ। এছাড়া গরীব শিশুদেরও চিকিৎসা দেয়া হয়।

সোনালী রোদ্দুর আইন ও সালিশ বিভাগ এর মাধ্যমে প্রতিবন্ধী ও সমাজের অবহেলিত নারী সমাজকে আইনী সহযোগীতা প্রদান করা হয়। র‌্যাড সাধারণ সম্পাদক এবং বাংলাদেশের প্রথম দৃষ্টি প্রতিবন্ধী মহিলা এ্যাডভোকেট নুর জাহানের তত্ত্বাবধানে এ প্রকল্পে কাজ করে যাচ্ছে কিছু দক্ষ ও নিবেদিত প্রাণ কর্মী। অসহায় নারী, স্বামী পরিত্যাক্ত, বিধবা সহ সকল শ্রেণির মহিলারা সম্পূর্ণ বিনামূল্যে আইনী সহযোগিতা পাচ্ছেন এ প্রকল্পে।

 

এছাড়া যাকাত ফান্ড হতে ইফতারদ্রব্য, ঈদ বস্ত্র বিতরণ করা হয়। চলতি বছরের শুরুতে দেয়া হয়েছে বিভিন্ন দৃষ্টি প্রতিবন্ধী মানুষদের সহজ চলাচল প্রশিক্ষণ কর্মসূচী।

 

বিস্তারিত জানতে ও সহযোগিতায় যোগাযোগঃ

রাইট এ্যাকশন ফর ডিজএ্যাবিলিটি (র‌্যাড)

মারফত ভিলা (নীচ তলা), পান্থ নগর,

আকবর শাহ মাজার রোড, আকবর শাহ, চট্টগ্রাম।