নওগাঁয় সেলাই মেশিন বিতরণ এবং ঝিনাইগাতীতে শ্রবণ ক্ষমতা পরীক্ষা ক্যাম্প

351

 

শ্রবণ ক্ষমতা পরীক্ষা ক্যাম্পে অডিওমিটারের মাধ্যমে ৫০০ শ্রবণ প্রতিবন্ধী মানুষকে বিনামূল্যে সেবা প্রদান ও ৯ জন শ্রবণ প্রতিবন্ধী ব্যক্তিকে হিয়ারিং এইড বিতরণ করা হয় শেরপুরের ঝিনাইগাতীতে। একজন নাক-কান-গলা বিশেষজ্ঞ ও উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের স্বাস্থ্য কর্মকর্তা দিনব্যাপী পরীক্ষা করেন শ্রবণ প্রতিবন্ধী ব্যক্তিদের।

 

গত ১৪ সেপ্টেম্বর ২০১৫, শুনতে কি পাও? নামের তরুণ স্বেচ্ছাসেবী একটি সংস্থার উদ্যোগে, প্রতিবন্ধী মানবিক উন্নয়ন সংস্থা এবং বাংলাদেশ সোসাইটি ফর দ্যা চেঞ্জ এ্যান্ড অ্যাডভোকেসি নেক্সাস (বি-স্ক্যান) এর সহযোগিতায় এই আয়োজন করা হয়।

এদিকে ‘শুনতে কি পাও?’ নওগাঁ জেলার মহাদেবপুর উপজেলার চান্দাস ইউনিয়নে ৪টি সেলাই মেশিন প্রদান করেছে। সেলাই মেশিন প্রশিক্ষণ কর্মসূচির মাধ্যমে প্রতিবন্ধী মানুষের কর্মসংস্থান নিশ্চিত করা এই প্রকল্পের মূল লক্ষ্য। ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান তার কার্যালয়ের একটি কক্ষ প্রদান করলে গত ৭ অগাস্ট ২০১৫ থেকে প্রাথমিকভাবে ৮ জন প্রতিবন্ধী ব্যক্তির প্রশিক্ষণ শুরু হয় সেখানে।

 

এই প্রশিক্ষণ কেন্দ্রের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন মহাদেবপুরের বীর মুক্তিযোদ্ধা আবু সাঈদ বাচ্চু। বিশেষ অতিথি ছিলেন খাজুর ইউপি চেয়ারম্যান মোঃ বেলাল উদ্দিন, মোঃ সোলাইমান মাস্টার, মীর্জা সেকান্দার আলী স্বাধীন সহ প্রমুখ। অনুষ্ঠানে স্বাগত বক্তব্য রাখেন প্রতিবন্ধী নাগরিক সংগঠন পরিষদ (পিএনএসপি) এর নির্বাহী সদস্য দৃষ্টি প্রতিবন্ধী ব্যক্তি সোহেল রানা। মহাদেবপুর প্রতিবন্ধী বহুমুখী সমবায় সমিতির সভাপতি শারীরিক প্রতিবন্ধী মোঃ সফিজ উদ্দিন অনুষ্ঠানের সভাপতিত্ব করেন।

 

উল্লেখ্য, ‘শুনতে কি পাও?’ তাদের প্রতিষ্ঠালগ্ন থেকেই সমাজের বঞ্চিত-নিপীড়িত মানুষদের নিয়ে কাজ করছে। এই ধারাবাহিকতায় এবার তারা প্রথমবারের মত প্রতিবন্ধী ব্যক্তিদের কর্মক্ষম করার উদ্দেশ্যে ৬ মাস ব্যাপী এই প্রশিক্ষণ প্রকল্প শুরু করে। ব্র্যাকের প্রশিক্ষণপ্রাপ্ত কারিগরকে প্রশিক্ষক হিসেবে নিয়োগ দেয় তারা। যা স্থানীয় ‘মহাদেবপুর প্রতিবন্ধী সমবায় সমিতির’ তত্ত্বাবধানে পরিচালিত হচ্ছে। ৩ দফায় পর্যবেক্ষনের মাধ্যমে একে দীর্ঘমেয়াদী করার এবং প্রয়োজনে অধিক শিফটে কার্যক্রম পরিচালনা করার পরিকল্পনা রয়েছে ‘শুনতে কি পাও?’ এর।