বাসে হয়রানি; কিসের ঘাটতি, আইনের প্রয়োগে?

31

 

আমি একজন শারীরিক প্রতিবন্ধী মানুষ। গত ১ সেপ্টেম্বর অফিস থেকে ‘হিমাচল’ বাসে করে মিরপুর যাচ্ছিলাম। বাস ভাড়া দিতে গিয়ে আমাকে গুণতে হয় দ্বিগুণ টাকা। কারণ, বাসে হুইলচেয়ার রাখলে বেশি জায়গা লাগে। এটা অন্যায়, তা অনেক বার বললাম। কিন্তু না, কোন অবস্থায় মানলেন না বাস ড্রাইভার মিজান।

 

সিটিং বাসটি দাঁড়িয়ে যাত্রীও তোলে না। আর আমার হুইলচেয়ারের জন্যে দাঁড়িয়ে থাকা অন্যদের সমস্যা হচ্ছে। নিরুপায় হয়ে ২০ টাকা বাস ভাড়ার সাথে অতিরিক্ত ৪০ টাকাও দিতে হল আমাকে। অপরাধ সাথে হুইলচেয়ার বহন করি। যদিও টাকাটা বড় ব্যাপার নয়। তবে সবচেয়ে অবাক হলাম, বাসে বসে থাকা অন্যান্য যাত্রীদের নিশ্চুপ হয়ে থাকাতে। তারা কেউ আমার পক্ষে কথা বলে নি একবারের জন্যও। তখন মনে হল, বাসের ভেতর অঘোষিত নীরবতা পালন হচ্ছে।

 

বর্তমানে আমার মত মানুষদের জন্য আইন তৈরি হয়েছে, তার পালনের জন্য মানুষও আছে তবুও কিসের ঘাটতি আইনের প্রয়োগে? সবার কাছে প্রশ্ন আমার। যা হোক, আমার কথাগুলো সবার কাছে পৌঁছে দিতে পেরে ভাল লাগছে। তবে, এই ভাল লাগা যাতে অটুট থাকে সেই বিশ্বাস রাখি। পরিবর্তন হবেই, হতে পারে সেটা খুব দ্রুতই।

 

মোঃ গোলাম মাওলা, ঢাকা।